ইস্টিশন - হুমায়ূন আহমেদ Book Review With Pdf - Studenttimesbd

ইস্টিশন – হুমায়ূন আহমেদ Book Review With Pdf

 বই : ইস্টিশন
লেখক : হুমায়ূন আহমেদ
শিরোনাম :   এক স্টেশন মাস্টারের পরিবারকে কেন্দ্র করে রচিত এই উপন্যাসটি।

রেলস্টেশন মাস্টারের দুই ছেলে টগর এবং রঞ্জু। তার স্ত্রী একজন মানসিক রুগী।  প্রায় তাকে ঘরে আটকে রাখা হয়। তাদের সাথে থাকেন রেলস্টেশন মাস্টারের বোন রহিমা ও তার মেয়ে কুসুম।

রঞ্জু এই নিয়ে দুইবার মেট্রিকে ফেল করেন। কুসুম ও এবার মেট্রিক পরীক্ষা দিবে। রঞ্জু ঠিক করে সে আর পরীক্ষা দিবেনা একদিন হঠাৎ সাইকেল নিয়ে বেড়িয়ে যায়।

কুসুম মেয়েটি বেশ বুদ্ধিমতী ছিল। টগর সব সময় আগ্রহ নিয়ে কুসুমের সাথে সাথে থাকতো। কুসুম একদিন টগরকে বলে – তার কাছে এমন এক বিশেষ চিনহ্ আছে যা দ্বারা সব পুরুষ তার কথা শুনবে। সেই বিশেষ চিনহ্ হলো তার বুকের মাঝের লাল তিল।

ইস্টিশন – হুমায়ূন আহমেদ pdf Download

কুসুম আরও অদ্ভুত কথা বলেন যার ফলে টগরের উৎসাহের কোন শেষ ছিলনা।  এদিকে রঞ্জু হঠাৎ ফিরে আসে সে তখন এনজিও তে চাকরি পায়।

রেললাইন দূর্বল হয়ে যাওয়ার ফলে একবার এটি ঠিক করার জন্য একজন  ইঞ্জিনিয়ার  আসেন। চীনা ম্যান তাদের কাজের তদারকি করেন।  কিন্তু চীনা ম্যান সবাইকে খুব উত্যক্ত করতেন তার উপর সবার ক্ষোভ জমে যায়।

ইঞ্জিনিয়ারের সাথে রেলস্টেশন মাস্টারের খুব খাতির হয়ে যায় সে বাসায় আসা যাওয়া করতে শুরু করে। কুসুমের প্রেমে পরে যায়। টগরকেও খুব স্নেহ করতেন।

কুসুমের মেট্রিক পরীক্ষার রেজাল্ট বের হয় কুসুম শুধু পাশ করেনি  স্ট্যান্ড করে সে। এদিকে রঞ্জুর মায়ের অবস্থা দিন দিন খারাপ হতে থাকে ইঞ্জিনিয়ারের সাহায্যে তাকে মেন্টাল হসপিটালে পাঠানো হয় চিকিৎসার জন্য।

একদিন সকালে এক অদ্ভুত ঘটনা ঘটে যায় চীনা ম্যানের দেহ টুকরো টুকরো হয়ে পরে আছে রেল লাইনে।ভীতু ইঞ্জিনিয়ার সাহেব নিজেকে নির্দোষ প্রমান করতে পারেনি আসলে খুন সে করেনি। অন্যরা তার জ্বালাতন সহ্য করতে না পেরে তাকে মেরে ফেলে ট্রেন চাপা দিয়ে। এক সময় সেই ইঞ্জিনিয়ারের ও ফাসির আদেশ হয়ে যায়।

কুসুম ও তার বাবার কাছে রাজশাহীতে এসে কলেজে ভর্তি হয়। রঞ্জুও বিদেশ চলে যায়।  টগর আর রহিমা থাকে বাড়িতে। টগরকে প্রায় কুসুম চিঠি দেয় কুসুমের আসার অপেক্ষায় থাকে৷

সব মানুষের মধ্যে একটা ইস্টিশন থাকে| সেই ইস্টিশনের সিগন্যাল ডাউন করা| ইস্টিশনে সবুজবাতি জ্বলছে| আনন্দময় ট্রেনের জন্য অপেক্ষা| কারো কারো ইস্টিশনে ট্রেন সত্যি সত্যি এসে থাকে| কারো কারো ইস্টিশনে ট্রেন আসে ঠি কই, কিন্তু মেলট্রেন বলে থামে না|  ঝড়ের মতো উড়ে চলে যায়|’

জান্নাতুল ফেরদাউস
শিক্ষার্থী, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয়

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *