ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ FIFA WORLD CUP

ফিফা বিশ্বকাপ কাতার ২০২২

 

ফিফা বিশ্বকাপ ২২তম আসর অনুষ্ঠিত হবে 2022 সালে। 22 তম বিশ্বকাপের জন্য স্থান নির্ধারণ করা হয়েছে কাতার।পুরুষদের ফুটবল খেলার জন্য প্রতি চার বছর পর পর ফিফা একটি প্রতিযোগিতার আয়োজন করে থাকে। এর আগে 2018 সালে রাশিয়ায় 21 তম ফিফা বিশ্বকাপ আসর হয়। 2014 সালে ব্রাজিলে বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হয়। বিভিন্ন আসর বিভিন্ন দেশে বা মহাদেশের হলেও ফিফা বিশ্বকাপ কাতার 2022 এটিই প্রথম আরব বিশ্বে ফিফার প্রথম বিশ্বকাপ। এটিই প্রথম মুসলিম সংখ্যাগরিষ্ঠ দেশে অনুষ্ঠিত হতে যাচ্ছে বিশ্বকাপ। কাতার 2022 বিশ্বকাপ হচ্ছে এশিয়া মহাদেশের অনুষ্ঠিত দ্বিতীয় ফিফা বিশ্বকাপ। ৩২ দল বিশিষ্ট শেষ বিশ্বকাপ এটি। 2026 সালে ৪৮ দল বিশিষ্ট বিশ্বকাপ অনুষ্ঠিত হবে উত্তর আমেরিকাতে। বিশ্বকাপে বর্তমান চ্যাম্পিয়ন হচ্ছে ফ্রান্স।

 

স্বাগতিক দেশ-কাতার

  • তারিখ:- ২১ নভেম্বর-১৮ ডিসেম্বর (২০২২)
  • দল:-৩২
  • ভেন্যু:-৮

 

এটিই একমাত্র বিশ্বকাপ যা নভেম্বরের শেষ থেকে ডিসেম্বরের মাঝামাঝি সময়ে নির্ধারিত। অন্য বিশ্বকাপ গুলো মে, জুন বা জুলাই মাসে শুরু হত। 28 দিন সময়ব্যাপী এই বিশ্বকাপের ফাইনাল ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে ২০২২ সালের ১৮ ডিসেম্বর যা কাতার জাতীয় দিবস হিসেবে পালিত হয়।

 

কাতার বিশ্বকাপ আয়োজক হওয়ার নিয়ে নানা দুর্নীতির অভিযোগ আনা হয়েছিল। কিন্তু ফিফার একটি তদন্ত রিপোর্টে জানায় কাতার কোনো দুর্নীতির আশ্রয় নেই নি। 2018 ও 2022 বিশ্বকাপ আয়োজকবিজয়ীদের দুর্নীতি ও অর্থ পাচার নিয়ে তদন্ত শুরু করে সুইস ফেডারেল প্রসিকিউটর। ফিফার সাবেক প্রেসিডেন্ট সেপ ব্লাটার দাবি তুলেছিলেন ” ব্লাক অপ্স” ব্যবহার করেছে কাতার। ফিফা বিশ্বকাপ আয়োজক হওয়ার পর থেকেই কাতার নানা সমালোচনার শিকার হচ্ছে। কাতারে জোরপূর্বক শ্রম ও শ্রমিকরা মানবাধিকার লঙ্ঘনের শিকার হচ্ছে এমন সব অভিযোগ তোলা হয়। বিশ্বকাপে চিকিৎসা কর্মীর সাথে চিকিৎসা বিষয়ক সমস্যার কারণে কাতার তীব্র সমালোচনার শিকার হয়।

 

১২ এপ্রিল ২০১৮, কনমেবল ২০২২ বিশ্বকাপে ৩২ দলের পরিবর্তে ৪৮ দলের মধ্যে প্রতিযোগিতার আয়োজন করার জন্য অনুরোধ করেন। ফিফার সভাপতি এটা নিয়ে বিবেচনার ইচ্ছা প্রকাশ করেন।২০১৮ সালের বিশ্বকাপ শুরুর কিছুদিন আগেই ফিফা এই আবেদন প্রত্যাখ্যান করেন। ফিফা কংগ্রেস জানান ২০২৬ সালে উত্তর আমেরিকায় অনুষ্ঠিত বিশ্বকাপে ৪৮ টি দল নিয়ে প্রতিযোগিতা অনুষ্ঠিত হবে।

 

 বিশ্বকাপ আয়োজক নির্বাচন:

২০১৮ ও ২০২২ সালের  বিশ্বকাপ আয়োজক দেশ নির্ধারণ করা হয়েছিল ২০০৯ সালের ২ ফেব্রুয়ারি। ২০১৮ সালের বিশ্বকাপ আয়োজক নির্ধারণ করা হয় রাশিয়া। ২০২২ সালের বিশ্বকাপের আয়োজক দেশ নির্ধারিত হয় কাতার । ২০২২ সালে বিশ্বকাপ আয়োজক হতে চেয়েছিল অস্ট্রেলিয়া, জাপান ,কাতার ,দক্ষিণ কোরিয়া ও মার্কিন যুক্তরাষ্ট্র। আয়োজক নির্বাচনের জন্য ফিফা কার্যনির্বাহী সদস্য গঠন করা হয়। এই সদস্যদের ভোটের মাধ্যমে আয়োজক দেশ নির্বাচিত করা হয়।কাতার বেশি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলে নানা দুর্নীতি এবং অর্থ কেলেঙ্কারির জন্যকাতার বেশি ভোট পেয়ে নির্বাচিত হলে নানা দুর্নীতি এবং অর্থ কেলেঙ্কারির জন্য সমালোচিত হয়।কাতারকে নির্বাচিত করার ঔষধ নীতির অভিযোগ আসে। বিশ্বকাপ আয়োজক হিসেবে সবচেয়ে ছোট দেশ কাতার। এর আগে এত ছোট দেশে বিশ্বকাপ আয়োজন করা হয় নি। এর আগে ছোট আয়তনে বিশ্বকাপ আয়োজক দেশ ছিল সুইজারল্যান্ড যা কাতারের চেয়ে তিনগুণ বড়। কাতারে খেলবে ৩২ দল এবং সুইজারল্যান্ডে ১৯৫৪ সালে খেলেছিল ১৬ দল।

 

বিশ্বকাপ যোগ্যতা:

 বিশ্বকাপে ৬ টি মহাদেশ থেকে ৩২ টি দল অংশগ্রহণ করবে। ফিফার সদস্য দেশ আছে ২১১টি।দেশগুলো থেকে বাছাই প্রক্রিয়ার মাধ্যমে ৩২ টি দল নির্বাচিত করা হবে ‌। প্রতিটি দল‌ই বাছাই প্রতিযোগিতায় অংশগ্রহণ করতে পারবে। স্বাগতিক দেশ হিসাবে কাতারস্বাগতিক দেশ হিসাবে কাতার স্বয়ংক্রিয়ভাবে নির্বাচিত।বর্তমান চ্যাম্পিয়ন ফ্রান্স কেউ এই পাছায় প্রতিযোগিতার মধ্য দিয়ে নির্বাচিত হতে হবে।

 

ফিফা বিশ্বকাপ মাঠ ২০২২:

কাতার মধ্যপ্রাচ্যের দেশ থাকাতে প্রচুর গরম অনুভূত হয়। এই গরম লাগব‌ করতেই নভেম্বর-ডিসেম্বরে খেলা রাখা হয়েছে।তাছাড়াও স্টেডিয়ামগুলোতে শীতলকারী  প্রযুক্তি ব্যবহার করা হয়েছে 20 ডিগ্রি সেলসিয়াস পর্যন্ত তাপমাত্রা হ্রাস করতে সক্ষম। কাতারের স্টেডিয়াম গুলোতে অনেক উন্নত মানের অবকাঠামো ব্যবহার করা হয়েছে। উত্তরাধিকার, আরাম, পরিবেশ যোগ্যতা এবং স্থায়ীত্ব এই চারটি বিষয়কে অগ্রাধিকার দেয়া হয়েছে। টেকসই ও পরিবেশবান্ধব স্টেডিয়াম তৈরিই কাতারের প্রধান লক্ষ্য। প্রতিটি স্টেডিয়ামের শীতল  ব্যবস্থা রাখা হয়েছে। প্রতিটি স্টেডিয়াম উন্নত প্রযুক্তি ব্যবহার করে পরিবেশবান্ধব করে তৈরি করা।

 

কাতার বিশ্বকাপ স্টেডিয়াম:

  • লুসাইল আইকনিক স্টেডিয়াম (দোহা)
  •  ধারণক্ষমতা:৮০,০০০

 

  • আল ক‌ইত স্টেডিয়াম(আল খুর)
  • ধারণক্ষমতা:৬০,০০০

 

  • রাস আবু আবুল স্টেডিয়াম (দোহা)
  • ধারণক্ষমতা:৪০,০০০

 

  • আল সুমামাহ স্টেডিয়াম (দোহা)
  • ধারণক্ষমতা: ৪০,০০০

 

  • এডুকেশন সিটি স্টেডিয়াম (দোহা)
  • ধারণক্ষমতা: ৪৫,৩৫০

 

  • আল রাইয়ান স্টেডিয়াম (দোহা)
  • ধারণক্ষমতা: ৪৪,৭৪০

 

  • খলিফা আন্তর্জাতিক স্টেডিয়াম (দোহা)
  • ধারণক্ষমতা: ৪০,০০০

 

  • আল জানুব স্টেডিয়াম (আল ওয়াক্রাহ)
  • ধারণক্ষমতা: ৪০,০০০

 

ফিফা বিশ্বকাপ ২০২২ সময়সূচি:

 

চূড়ান্ত ড্র হওয়ার কথা আছে ২০২২ সালের এপ্রিল মাসে।

আর্জেন্টিনা vs ব্রাজিল পরিসংখ্যান

আর্জেন্টিনার লজ্জার রেকর্ড

ব্রাজিলের যত লজ্জার রেকর্ড

FIFA WORLD CUP QATAR 2022

You may also like...

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *